কিশোরগঞ্জের যুদ্ধাপরাধী মামলায় ঈশ্বরগঞ্জের শহীদুল্লাহ ফকিরকে গ্রেফতার

কিশোরগঞ্জে  যুদ্ধাপরাধী করে ঈশ্বরগঞ্জের শহীদুল্লাহ ফকির গ্রেফতার

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলায় অভিযুক্ত শহীদুল্লাহ ফকিরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলায় শহীদুল্লাহ গ্রেপ্তার

ডেস্করিপোর্টঃ বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকেলে শহীদুল্লাহ ফকিরকে গ্রেপ্তার করে তাকে আদালতে সোপর্দ করেছে ঈশ্বরগঞ্জের পুলিশ।

১৯৭১সনে কিশোরগঞ্জে ও তার নিজ এলাকা ঈশ্বরগঞ্জে পাকিস্তানের পক্ষ হয়ে মানবতাবিরোধী কর্ম করে এক ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছিল এই শহীদুল্লাহ ফকির। এই শহীদুল্লাহ ফকির তার সঙ্গীয়দেরকে নিয়ে ১৯৭১ সনে ১০নভেম্বর কিশোরগঞ্জ শহরের শিক্ষকপল্লীর বাসিন্দা আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক এবি মহিউদ্দিন আহমেদকে কাঁচারী বাজার থেকে ধরে নিয়ে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে খুন করে। এ প্রেক্ষিতে এক দায়ের করা অভিযোগের প্রেক্ষিতে দীর্ঘদিন  তদন্ত করে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে তাকে গ্রেফতার করে। মহি উদ্দিনের হত্যাকান্ডে  সাক্ষীদের জবানবন্দিতে যে কয়জন ব্যক্তির নাম এসেছে তার মধ্যে মৃত প্রফেসর মাহতাব উদ্দিন ও জীবিত জহিরুল হকের নামও ছিল।

ধৃত এই যুদ্ধাপরাধী হলেন  ঈশ্বরগঞ্জ পৌর এলাকার কাকনহাটি গ্রামের বাসিন্দা শহীদুল্লাহ ফকির (৭২)।  তিনি ওই গ্রামের প্রয়াত মৌলভী কমর উদ্দিন ফকিরের ছেলে। বাড়ি ঈশ্বরগঞ্জ হলেও তিনি ঢাকার বনানী এলাকায় একটি বাসায় বসবাস করতেন।

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে ২০১৯ সালের ২ নভেম্বর তার বিরুদ্ধে অভিযোগ জমা পড়ে।  অভিযোগটি তদন্ত করে ট্রাইব্যুনাল পরে বৃহস্পতিবার বিকেলে ঈশ্বরগঞ্জ পৌর এলাকার কালীবাড়ি রোড থেকে ঈশ্বরগঞ্জ থানার উপ পরিদর্শক শাওন চক্রবর্তী তাকে গ্রেপ্তার করে।।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল কাদের মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, ট্রাইব্যুনালের নির্দেশে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.